‘নবাব’ ও ‘বস-২’ ছবির মুক্তি বন্ধ করতে ‘চলচ্চিত্র ঐক্যজোট’?






আর দিন দশেক পরেই ঈদের ধুম লেগে যাবে চারদিকে। ঈদ উৎসবে বিনোদনের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম সিনেমা। দিনকে দিন দেশের প্রেক্ষাগৃহ কমলেও ঈদ উপলক্ষ্যে এখনো হলে গিয়ে সিনেমা দেখার কোনো বিকল্প নেই। আর সেই লক্ষ্যেই প্রতি বছরের মতোই এবারও শুধু ঈদকে সামনে রেখে বড় পর্দায় মুক্তি পেতে চলেছে বেশ কয়েকটি সিনেমা! এরমধ্যে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে আলোচিত ছবি দুটোর নাম নবাব ও বস-২!

আসছে ঈদ উপলক্ষ্যে মুক্তির প্রতীক্ষায় থাকা ছবি দুটোই নির্মিত হয়েছে যৌথ প্রযোজনায়! আর যৌথ প্রযোজনা হওয়ায় ছবি মুক্তি নিয়ে তৈরি হচ্ছে জটিলতা! কারণ এই ছবি দুটো যৌথ প্রযোজনার নিয়ম নীতি, অধ্যাদেশ অনুসরণ করে নির্মিত কিনা সে বিষয়ে সেন্সর বোর্ডের শরণাপন্ন হয়েছে বাংলা চলচ্চিত্র ঐক্যজোট নামের সংগঠন! যেখানে কার্যকর ভূমিকায় আছেন চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি ও চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নেতারা।

দিন আঠারো পরেই ঈদুল ফিতর। আর এই উৎসবকে সামনে রেখেই প্রস্তুতি নিচ্ছে ঈদের সিনেমাগুলো। এরইমধ্যে ঈদের ছবির ফার্স্টলুক, পোস্টার, টিজার, ট্রেলার আর মুহূর্মুহূ গানে সরগরম ভার্চুয়াল দুনিয়া। সেখানেও দাপটের সঙ্গে প্রচারণায় নেমেছে ঈদে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা যৌথ প্রযোজনার দুই ছবি নবাব ও বস-২। এরমধ্যে ভার্চুয়ালে রীতিমত কাঁপিয়ে চলেছে দেশের সুপারস্টার অভিনেতা শাকিব খান অভিনীত ছবি ‘নবাব’। অবশ্য পিছিয়ে নেই কলকাতার জিৎ ও বাংলাদেশের নুসরাত ফারিয়া অভিনীত ছবি ‘বস-২’! অথচ এই ছবি দুটোকে আটকে দিতে হঠাৎ প্রিভিউ কমেটিকে চিঠি পাঠিয়েছে ‘চলচ্চিত্র ঐক্য জোট’!

সোমবার দুপুরে চলচ্চিত্র সেন্সর প্রিভিউ কমিটিকে লিখিত চিঠি পাঠিয়েছে এই সংগঠনটি। চিঠিতে জাজ মাল্টিমিডিয়ার প্রযোজনায় আলোচিত নবাব ও বস-২ ছবি দুটো যৌথ প্রযোজনার সঠিক নিয়ম-নীতি মেনে নির্মিত হয়েছে কি না, সে বিষয়টি খতিয়ে দেখার আহ্বান জানানো হয়। ছবি দুটো যদি যৌথ প্রযোজনার নিয়ম-নীতি না মেনে নির্মাণ করা হয়, তাহলে তাদের যেন অনাপত্তিপত্র না দেওয়া হয় এমনটিও অনুরোধ করা হয়েছে। প্রিভিউ কমেটিকে দেয়া এই চিঠি বিষয়ে সোনালীনিউজকে নিশ্চিত করেছেন চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন।

বদিউল আলম খোকন এ বিষয়ে বলেন, কারো সঙ্গে আমাদের শত্রুতা নেই। আমরা চলচ্চিত্রের সব সংগঠন এখন একত্র হয়েছি, এবং এটা মনে করি যে দেশিয় চলচ্চিত্রের স্বার্থ রক্ষা আগে। কারণ অতীতে যৌথ প্রযোজনার নামে প্রচুর প্রতারিত হয়েছি আমরা। আর প্রতারণা নয়, এবার নিয়ম নীতি না মেনে যারা যৌথ প্রযোজনার ছবি করবে, সেসব বিষয়েও নজর রাখবে চলচ্চিত্র সংগঠনগুলো।

ক’দিন আগেই শাকিব খানের সঙ্গে বদিউল আলম খোকনসহ শিল্পী সমিতির অনেক নেতার সঙ্গে বিবাদ স্পষ্ট হয়। প্রিভিউ কমিটির কাছে হঠাৎ তাদের এমন চিঠির প্রেক্ষিতে তাই অনেকের মনে প্রশ্ন, আসলে যৌথ প্রযোজনার ছবি রুখতে নয় বরং শাকিবের ‘নবাব’ ঠেকাতেই এমনটি করছেন তারা! অনেকে প্রশ্ন তুলছেন, হঠাৎ যৌথ প্রযোজনার ছবি নিয়ে এতো শক্ত অবস্থানে কেনো যাচ্ছে চলচ্চিত্র ঐক্যজোট? আগেওতো বহু যৌথ প্রযোজনার ছবি দেশের সিনেমায় মুক্তি পেয়েছে। এমনকি একেবারে ভারতীয় সিনেমা পর্যন্ত দেশের সিনেমা হলে অবাধে মুক্তি পেয়েছে, সেসময়তো এসব সংগঠন সেসব ছবি মুক্তির বিরুদ্ধে কথা বলেনি? শক্ত অবস্থানও নেয়নি? ক’দিন আগে সাফটা চুক্তির মাধ্যমে ‘ওয়ান’ নামের কলকাতার একটি সিনেমা দেশের প্রায় অধিকাংশ হল দখল করে নিলো, ঠিক একই সময়ে দেশের একটি সিনেমা প্রেক্ষাগৃহ পেলো সাকল্যে সাতটি। সেসময় এই সংগঠনগুলোকেতো এতো শক্ত অবস্থান নেয়নি? তাহলে কি, যৌথ প্রযোজনার ছবিতে শাকিব আছেন বলেই বিভিন্ন সংগঠনের নাম নিয়ে ছবি মুক্তি ঠেকাতে চাইছে?

তবে এসব প্রশ্ন গায়ে মাখছেন না সেন্সর বোর্ডের প্রিভিউ কমিটি। বরং চলচ্চিত্র ঐক্য জোট থেকে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে, সেগুলো খতিয়ে দেখবে তারা। এরই ধারাবাহিকতায় ৬ জুন মঙ্গলবার ‘বস-টু’ ছবিটি প্রিভিউ কমিটি দেখবে। যৌথ প্রযোজনার নিয়ম নীতি ঠিক আছে কি না? নিয়ম নীতি ঠিক থাকলে ভালো, আর ঠিক না থাকলে আইন অনুযায়ি ব্যবস্থা নিবে তারা। অন্যদিকে প্রিভিউ কমিটির কাছে এখনো এসে পৌঁছায়নি শাকিব খান অভিনীত ‘নবাব’ ছবিটি। এ ছবির ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রয়োগ করবে প্রিভিউ কমিটি।

Be the first to comment

Leave a Reply